কেন বিসিবির হাতে সুযোগ ছিল না!



প্রায় চার বছর পর অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ খেলতে এসেছে। পাঁচটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে এসেছে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া। সিরিজটি ৩ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে। পাঁচটি টি 20 সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ পা রেখেছেন অস্ট্রেলিয়াতে এতে বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তরা অনেক খুশি হয়েছেন।

আর অস্ট্রেলিয়ার আবদার গুলো ফালাতেপারেন নি বিসিবি। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের যতগুলো আবদার তারা করেছেন সব নিয়ম অনুযায়ী মেনে নিয়েছেন বিসিবি। আর দেশের স্বার্থে অস্ট্রেলিয়ার আবদার গুলো মেনে নিয়েছেন বিসিপি।

কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার এই সফরকে ঘিরে উল্টো বিরক্তি প্রকাশ করছেন তারা।

এর কারণ একটাই, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বেঁধে দেয়া বেশ কিছু শর্ত। যা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ওপর (বিসিবি) চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সেসব শর্তগুলোর অন্যতম হলো - মাত্র সাত দিনেই সিরিজের পাঁচ ম্যাচ খেলে ফেলা। আগামী ৩ আগস্ট (মঙ্গলবার) শুরু হবে সিরিজ। পরের চার ম্যাচ যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট।

সবমিলিয়ে বাংলাদেশে মাত্র ১১ দিন থাকতে চায় অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। কেন এমন তাড়াহুড়ো তাদের? এখানাকার আবহাওয়া, পরিবেশ, পরিস্থিতি কি অসিদের প্রতিকূলে?

শুক্রবার বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজনের সামনে এমন সব প্রশ্ন রাখা হয়।

জবাবে তিনি বলেন , ‘আমাদের হাতে আর কোনো সুযোগ ছিল না। অস্ট্রেলিয়া যত কম সময়ের মধ্যে সম্ভব খেলা শেষ করে চলে যেতে চাচ্ছে। অবশ্য আবহাওয়ার বিষয়টিও বিবেচনায় রাখতে হয়েছে। যেহেতু টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আর মাঠের প্রস্তুতি ভালো। মাঠের ড্রেনেজ সিস্টেম সম্পর্কে আপনাদের ধারণা আছে। আশা করি খেলাগুলো আমাদের মত করে শেষ করতে পারব।’

টিম অস্ট্রেলিয়াকে দেওয়া বিশেষ সুযোগের বিষয়টিকে অতিরঞ্জিত করে দেখার সুযোগ নেই বলে জানান নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।

বলেন, ‘স্ট্যান্ডার্ড বায়ো বাবল প্রটোকলে আছে অস্ট্রেলিয়া। এই প্রটোকলের বাইরে অস্ট্রেলিয়া দল বাড়তি কিছু চাহিদার কথা জানিয়েছে, আমরা সেগুলো পূরণের চেষ্টা করেছি। এর বাইরে কিন্তু তেমন কিছু না। বিষয়টাকে অতিরঞ্জিত করে দেখার সুযোগ নেই। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদেরকে এভাবেই ইভেন্টগুলো আয়োজন করতে হবে।’

0/Post a Comment/Comments