মামা ও মামির সিরিজ স্থগিত !








টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলা হওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়া আফগানিস্তানের তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলার কথা ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক অস্ট্রেলিয়া-আফগানিস্তান এর ওয়ানডে সিরিজটি শেষ পর্যন্ত স্থগিত হয়ে গেল।

অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তান ক্রিকেট ম্যাচের আয়োজক হিসেবে থাকতে চেয়েছিল আফগানিস্থান কিন্তু করোনা মহামারীতে আসা হয়নি অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু দেশটিতে করোনা আক্রান্ত বেড়ে যাওয়ার ফলে আরব আমেরিকাতে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর আসতে চেয়েছিল ইংল্যান্ড। কিন্তু ইংল্যান্ড এখন বাংলাদেশ সফর স্থগিত করেছে। এখন বাংলাদেশের সম্ভবত পাকিস্তান সিরিজ খেলার জটিলতা রয়েছে। যদি বাংলাদেশ ও পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ হয় তাহলে আইপিএলে যাবেন নাহ পাকিস্তান দলের অনেকেই।

রোববার (১৫ আগস্ট) এক বিবৃতিতে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এ সিরিজ স্থগিত করতে সম্মত হয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থানান্তরিত হওয়ায় ভ্রমণ, কোয়ারেন্টাইনের সময়সীমা ও ম্যাচ আয়োজনের ভেন্যু নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে। যে কারণে সিরিজটি আপাতত স্থগিত করা হলো।

এদিকে, তালেবান আগ্রাসনে রশিদ-মুজিবদের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলাও অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরু হতেই দেশটির একের পর এক এলাকা দখল করে নেয় তালেবান। বিশ্ব ক্রিকেটে নতুন শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে আফগানিস্তান। অথচ, আগামী অক্টোবরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের যোগদান নিয়ে তৈরি হয়েছে তীব্র ধোঁয়াশা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হতে আর মাত্র ২ মাস বাকি। তার আগে বিভিন্ন ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তালেবান আগ্রাসনে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি পুরোদমে ব্যাহত হচ্ছে। জাতীয় দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই আফগানিস্তানে অবস্থান করছেন। শুধু রশিদ খান, মুজিব উর রহমান এবং মোহাম্মদ নবিরা ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগ খেলার জন্য দেশের বাইরে আছেন।

এদিকে, আফগান ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারাও ক্রিকেটারদের অনুশীলনের ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ নিতে পারছে না। দেশটির জনগণের দুশ্চিন্তা এখন শুধুই তালেবানদের নিয়ে। ক্রিকেট আপাতত পেছনের সারিতে চলে গেছে আফগানিস্তানে।

তালেবান আগ্রাসনের কারণে কাবুল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম বন্ধ। দেশটির বেশিরভাগ ক্রিকেটার কাবুল স্টেডিয়ামেই অনুশীলন করেন। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে অনুশীলন তো দূরের কথা, ক্রিকেটাররা নিজেদের ও পরিবারের জীবন রক্ষায় ব্যস্ত। কবে থেকে প্রস্তুতি শুরু হবে, তা কেউ জানে না।

দেশটিতে শান্তি চেয়ে প্রার্থনা করতে দেখা গেছে আফগান স্পিন তারকা রশিদ খানকে। এক টুইটবার্তায় শুধু একটি শব্দই লেখেন রশিদ খান। আর তা হলো 'শান্তি'। শুধু এই একটি শব্দ লিখে পাশে দিয়েছেন প্রার্থনার ইমোজি। 

0/Post a Comment/Comments