গিটার দিয়ে শহীদ করার মিশনে বাংলাদেশের সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ !

 
গিটার দিয়ে শহীদ করার মিশনে বাংলাদেশের সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ !


আজ থেকে শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আজ ১৭( অক্টোবর ) বাংলাদেশ সময় ৮ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরু হচ্ছে বাংলায় টাইগারদের। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবেন বাংলায় টাইগাররা। 

২০০৭ সালের পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বে কোন ম্যাচ না জেতা তাই বাংলাদেশে সেই দেয়াল ভাঙতে চায়।

যে পথে উতরাতে হবে প্রথম পর্ব, প্রতিপক্ষ হবে স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি ও ওমান। প্রথম পর্বে দুইগ্রুপে অংশ নেবে ৮ টি দল। পতি গ্রুপ থেকে সুপার টুয়েলভসে যাবে দুটি দল। বলা যায় যে বি গ্রুপে বাংলাদেশ পেয়েছে সহজ প্রতিপক্ষ বা দল। তবে সহজে মধ্যে কঠিন দল স্কটল্যান্ড। আর তার বিপক্ষে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আজকে রাতে মাঠে নামবেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে।


দেশে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা দুটি সিরিজ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ টাইগাররা। যেহেতু ঘরের মাঠে খেলাটি হয়েছিল সেহেতু বাংলাদেশে তাদের সুবিধা কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ যে উইকেটে খেলেছে সেটা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বহুবার। কিন্তু তারা জয় নিয়ে বাড়তি আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন বাংলাদেশের টাইগাররা বলে জানান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। বিশ্বকাপে যাওয়ার ইতিবাচক বলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ,শাকিব আল হাসান ও টিম ম্যানেজমেন্ট।


কিন্তু বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ দুটি ম্যাচে হেরে তাতে আত্মবিশ্বাস হয়তোবা একটু হলেও হারিয়ে ফেলেছে। শ্রীলংকা ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি ম্যাচে হেরে কোনভাবে সতর্ক বার্তা মনে করছেন না টাইগার দলপতি।

স্কটল্যান্ডের স্কোয়াডে আছে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। যারা কালে ভদ্রে পূর্ণ সদস্য দলগুলোর সাথে খেলার সুযোগ পেয়েও নিজেদের মেলে ধরেছেন। সাথে সহযোগী দেশগুলোর বিপক্ষে ধারাবাহিক পারফর্ম তো আছেই। 
 
স্কটল্যান্ড স্কোয়াডের ১২ জন ক্রিকেটার খেলেন ইংলিশ কাউন্টিতেই। যাদের মধ্যে দলটির অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার, উইকেট রক্ষক ম্যাথু ক্রস, ব্যাটসম্যান জর্জ মানসে অন্যতম।

স্কটল্যান্ড গত ২ মাস ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাতে খেলেছে প্রচুর ম্যাচ, করেছেন অনুশীলন ক্যাম্প। বিশ্বকাপে নিজেদের নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী দলটির কোচ শেন বার্জার। ওমান, পাপুয়া নিউগিনিতো বটেই বাংলাদেশকেও বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ার কিছু নেই বলছেন বার্জার।

তার দলের শক্তিমত্তা দেখলে অবশ্য এসব বাড়াবাড়ি মনে হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। স্কোয়াডে আছে ১৫০ এর বেশি স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করা জর্জ মানসে। ৩০ এর বেশি গড়ে ১৫১৭ রান করা রিচার্ড বেরিংটন। অধিনায়ক কাইল কোয়েটজারও ব্যাট হাতে বাংলাদেশের মাথা ব্যথার বড় কারণ হতে পারেন। লম্বা ব্যাটিং লাইনআপ স্কটিশদের, যেখানে লোয়ার মিডলে মাইকেল লিস্ককে রাখতে হবে নজরে।
 
ওমানের আল আমিরাত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঘাসের উইকেট দেখা গিয়েছে ম্যাচের আগেরদিনও। তবে শেষ পর্যন্ত মূল ম্যাচে স্পোর্টিং উইকেট হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যদিও যৌক্তিক কারণে এমন উইকেটে বাড়তি স্পিনার নিয়ে নামছেনা বাংলাদেশ।

এর আগে বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ড একবারই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছিল। যেখানে পরাজিত দলের নাম বাংলাদশ। রিচার্ড বেরিংটনের সেঞ্চুরিতে ভর করে ১৬২ রান করেছিল স্কটিশরা। জবাবে ১২৮ রানে গুটিয়ে গিয়ে হেরেছে ৩৪ রানের বড় ব্যবধানে। ঐ ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান বেরিংটন আছেন এবারের বিশ্বকাপ স্কোয়াডেও।

স্কটল্যান্ডের শক্তিমত্তা-দুর্বলতা থেকে বাংলাদেশ দলে নজর দেওয়া যাক। ব্যাটিং বিভাগ অধারাবাহিক সেই অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে। ওপেনিং জুটিতে ব্যর্থতাও ধারাবাহিক। নাইম শেখ কিছু রানের দেখা পেলেও খেলেছেন চোখে পড়ার মত ডট বল।

অধিনায়ক রিয়াদ অবশ্য এসব নিয়ে ভাবছেন না। ফর্মে নেই দলের অন্যতম ভরসা মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসানরাও। আইপিএলে ব্যাট হাতে নেওয়া শেষ দুই ম্যাচেই খালি হাতে ফিরেছেন সাকিব।

প্রস্তুতি ম্যাচে রানের দেখা পাওয়া সৌম্য মূল মঞ্চে কতটা জ্বলে উঠেন সেটিই দেখার বিষয়। পেসারদের মধ্যে আইপিএল খেলা মুস্তাফিজুর রহমান আছেন ছন্দেই, যদিও প্রস্তুতি ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমে রান খরচে দেখিয়েছেন উদারতা।
 
চোটের কারণে প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে অংশ না নেওয়া অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেই ফিরছেন। আইপিএল ক্লান্তি এক পাশে রেখেও সাকিব আল হাসানের মাঠে নামা নিশ্চিত। বাংলাদেশ ব্যাটিং লাই আপে লিটন দাস ও নাইম শেখকেই ওপেন করানোর পরিকল্পনা করেছে। যেখানে তিন নম্বরের জন্য বিবেচনা করা হচ্ছে সৌম্য সরকারকে।

২০০৭ বিশ্বকাপের পর মূল পর্বে ম্যাচ না জেতা বাংলাদেশকে এবার যত বেশি সম্ভব ম্যাচ জেতাতে চান রিয়াদ। এর আগে কোনো অধিনায়কই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে বলার মত সাফল্য এনে দিতে পারেনি।


রিয়াদের উপর সেই চাপ থাকলেও আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া প্রথম পর্ব নিয়েই বেশি ভাবছেন। প্রথম পর্ব নতুন করে পরিকল্পনা সাজাতে চান বলে জানান গতকাল (১৬ অক্টোবর) ম্যাচের আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে।
রিয়াদ বলেন, ‘আমরা আপাতত এই রাউন্ড নিয়েই চিন্তাভাবনা করছি। ইন শা আল্লাহ এই রাউন্ড ভালো খেলে, সব ম্যাচ জিতে পরের রাউন্ডে গেলে এই জিনিসগুলো নিয়ে ভাববো। এর আগে আমি দেশে একটা কথা বলেছিলাম- আমাদের বেশ কয়েকটি ধাপ পার হতে হবে, কিছু বাধা আছে এগুলো ভাঙতে চাই। যত বেশি সম্ভব ম্যাচ জিততে চাই।’

0/Post a Comment/Comments